x 
Empty Product

রসুন ও কাচামরিচে আমের আচার

User Rating:  / 0
PoorBest 

ছোটবেলায় আম্মাকে দেখতাম কাচা আম শুকিয়ে আমের ঝাল আচার , কাশ্মীরি আচার তৈরি করতে । এখন অসুস্থতার কারনে আর এত ঝামেলা করে আমের আচার তৈরি করেন না ।

ছোটবেলায় আম্মাকে দেখতাম কাচা আম শুকিয়ে আমের ঝাল আচার , কাশ্মীরি আচার তৈরি করতে । এখন অসুস্থতার কারনে আর এত ঝামেলা করে আমের আচার তৈরি করেন না ।


 আর আমিও করবো করবো করে আর করি না । হয় টিভি নয়ত পিসি নিয়ে ব্যস্ত হয়ে গেলেই সব ভুলে যাই । এবার অনেকটা নিজেকে জোর দিলাম । এবার আমি একটা আমের আচার করবই ।
 যেই ভাবা সেই কাজ হয় যদি হাতের কাছে সব থাকে । তরকারিওয়ালা এসেছে দেখে কিছু তরকারি কেনা হল সাথে ১ কেজি কাচা আম ।

কি কি লাগবে দেখে নিইঃ  

 ১. কাচা আম - ৮ টি ছোট সাইজের  ।
 ২. রসুন  - আস্ত ২ টা  রসুনের খোসা ছাড়িয়ে কোয়া আলাদা করা ( যারা রসুন পছন্দ করেন না তারা এটা বাদ দিয়ে করতে পারেন )।
 ৩. কাচামরিচ - ১৫/২০ টা ( ঝাল কেমন খেতে পছন্দ করেন সেটার উপর নির্ভর করে মরিচ কম/বেশী দিবেন )।
 ৪. সরিষার তেল  -  ২ কাপ ।
 ৫.  জৈন , মেথি , কালোজিরা , সাদা সরিষা  - প্রতি টি ১ চা চামচ ।  
 ৬. রসুন বাটা - ২ চা চামচ ।
 ৭. হলুদের গুড়া  - ১  চা চামচ  ।
 ৮. মরিচের গুড়া - ১ চা চামচ ।
 ৯.  লবন -  স্বাদ বুঝে  দিবেন ( ১ চামচ কিংবা তার চেয়ে একটু কম )  ।
 ১০. পাঁচফোড়ন গুড়া - ১ চা চামচ ।
 ১১. সিরকা - আধা কাপ ।

আচার তৈরির পূর্ব প্রস্তুতিঃ

 ১. আম ধুয়ে ৪ টুকরা করে কাটতে হবে । বাটা রসুন এবং হলুদের গুড়া কেটে রাখা আমে মিশাতে হবে ।
 ২. রসুন এর খোসা ফেলে ধুয়ে নিতে হবে ।
 ৩. কাচামরিচের ডাটা ফেলে ধুয়ে নিতে হবে ।
 ৪. উপরের সব উপকরণ একসাথে বড় একটা থালা কিংবা বাঁশের কুলা তে দিয়ে  রোদে শুকাতে দিন । ১ থেকে ২ ঘন্টা রোদে রাখলেও চলবে ।
 ৫. জৈন , মেথি , কালোজিরা , সাদা সরিষা  - ধুয়ে নিন । একটা আলাদা ছোট পাত্রে নিয়ে রোদে শুকাতে দিন ।
 এগুলো শুকিয়ে গেলে একসাথে গুড়ো করে নিন ।  গুড়ো না করে আস্ত দিলেও হবে ।


তৈরি প্রণালীঃ
 ১. প্রথমে একটা কড়াই এ সরিষার তেল দিন । তেল ভালো করে গরম করে নিন ।
 ২. গরম তেল এ জৈন , মেথি , কালোজিরা , সাদা সরিষা গুড়ো , মরিচের গুড়া , পাঁচফোড়ন গুড়া দিয়ে একটু ভাজুন ।
 ৩. এখন  কাচা আম , রসুন ও কাচামরিচ দিয়ে লবন দিন ।   
 ৪. এরপর সিরকা দিয়ে আচার রান্না করুন । ৫ থেকে ১০ মিনিট ।
 ৫. এখন নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন ।
 ৬. ঠাণ্ডা হয়ে গেলে কাচের বৈয়ামে ভরে রাখুন ।
 ৭. মাঝে মাঝে আমের আচার এর বৈয়াম রোদে দিতে ভুলবেন না । এতে নাকি আচার অনেকদিন পর্যন্ত ভালো থাকে ।

 

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found